Ads1

প্রথম স্পর্শ মা, প্রথম পাওয়া মা, প্রথম শব্দ মা, প্রথম দেখা মা

প্রথম স্পর্শ মা, প্রথম পাওয়া মা, প্রথম শব্দ মা, প্রথম দেখা মা


_নাহিদুর রহমান৷ 

বাঙালীদের খুবই আবেগপ্রবণ একটি প্রচলিত কথা।

কিন্তু বউ আর মা দুইজন দুই ক্যাটাগরির মানুষ একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী নন।আর আপনার মায়ের  প্রতি অন্য কারো সম্মান প্রত্যাশা আপনি তখনই করবেন যখন আপনি অন্যর মাকে প্রাপ্য সম্মান দিতে পারবেন,,অন্যকে বার বার অসম্মান করার পর আপনি সম্মান আশা করতে পারেননা,,,

মা এবং বউ এরএকজন হলেন জন্মদাত্রী যার তুলনা ত্রিভুবনের কোন কিছুই দিয়েই দেওয়া যাবেনা। তিনি সন্মানিত তিনি প্রতিটা মানবজাতির আদর্শ ভালোবাসার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তিনি হলেন মা। প্রথম স্পর্শ মা, প্রথম পাওয়া মা, প্রথম শব্দ মা, প্রথম দেখা মা। 

অপরদিকে বউ হলেন সহধর্মিণী সারাজীবনের সাথী। যাকে ছাড়া আপনি পরিপুরক না। এইকথা গুলো এইজন্য বলছি যে প্রায় শোনা যায় অনেকেই বলে থাকেন বউ হারালে বউ পাওয়া যায় মা হারালে মা পাওয়া যায়না। 

আচ্ছা কখনো কি ভেবে দেখেছেন আপনার স্ত্রী ও একজন মা আপনার সন্তানদের কাছে। আপনার মঙ্গল কামনা দুইজন নারীই করে থাকে।

যারা এই দুইটা সত্তার মানুষের তুলনা করে তারা মুর্খ বেয়াদব ছাড়া আর কিছুইনা। সবকিছুর তুলনা খুঁজতে যাওয়া বোকামি।

এখন যদি আপনাকে প্রশ্ন করা হয় আপনি কাকে ভালোবাসেন? আপনার মা নাকি আপনার সন্তানকে? সবাই বলবে এইটা একটা উদ্ভট প্রশ্ন ঠিক তেমনি বউ মরলে বউ পাওয়া যাবে মা মরলে মা পাওয়া যায়না খুবই ছ্যাচড়ামুলক কথা। কারন দুইজন নারী আপনার জীবনে দুই রকম ভুমিকায় আছে। আপনার মা মারা গেলে আপনি যেমন হবেন এতিম।

ঠিক তেমনি বউ অর্থাৎ যিনি আপনার স্ত্রী তিনি মারা গেলে আপনার সন্তান ও হবে মা হারা এতিম। আপনার মায়ের পরে যদি কেউ মোনাজাতে দুইহাত তুলে সৃষ্টিকর্তার কাছে আপনার জন্য দোয়া করে সেইটা আপনার স্ত্রী। আপনার কষ্ট যন্ত্রনা ঠিক যতটা বিচলিত করে আপনার মা কে।

ঠিক তেমনি একি ভাবে অস্থিরতার টেনশনে ভোগায় আপনার স্ত্রীকে।

দিনশেষে আপনার বাড়ি ফেরার অপেক্ষার তালিকায় যেমন আপনার মা সন্তান থেকে অধীর আগ্রহে। 

ঠিক তেমনি সেই অপেক্ষার তালিকায় আপনার স্ত্রী ও থাকে। আপনার মা যেমন আপনার সাফল্যতে খুশি। ঠিক তেমনি আপনার স্ত্রী সাফল্যর খুশিতে সুখি।

মানুষের জীবন চলার পথে বিভিন্ন রকম কথা থাকে গল্প থাকে যা সবকিছু জন্মদাতা বাবা মা কে বলা যায়না। বাবা মা আপনজন হওয়া সত্বেও সেইসব কথা শেয়ার করা যায়না। কোথাও কোথাও না যেন ভয়, লজ্জা, জড়তা কাজ করে। কিন্তু জীবন সঙীর সাথে বলা যায় কোন প্রকার জড়তা সংশয়বোধ ছাড়ায় অনায়সে। প্রকৃত সত্য এই যে জীবন চলার ক্ষেত্রে দুইজনকেই প্রয়োজন।

শুধু তাই নয় প্রকৃত সুখি হতে চাইলে দুইজনকেই প্রয়োজন।  তাদের ভালোবাসুন সন্মান করুন তাদের যার যার স্থান থেকে। যার যে মর্যাদা তাকে সেইটাই দিন আপনার পক্ষ থেকে যতটুকু দেওয়া যায়। 

মনে রাখবেন বাবা মা হলেন শিক্ষক আজ আপনি যা করবেন বলবেন তাই দেখে শিক্ষা নেবে আপনার সন্তান। তাদের সামনে এই শিক্ষা পেশ করবেন না বউ মরলে বউ পাবে কিন্তু মা মরলে মা নয়।

বরং তাদের সামনে এই শিক্ষা পেশ করুন প্রকৃত সুখি হতে হলে জীবনে দুইজনের ভুমিকা আবশ্যক এবং তাদের মর্যদা নিজ নিজ অবস্থান থেকে। 

বউ বা মা কেউ কারোর প্রতিদ্বন্দ্বী নন বরং দুইজনই জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ।